Blog

রশীদ হলের প্রতাপশালী প্রেমিকেরা

আমরা একদা হাবুডুবু খেতাম প্রেমে, বয়স যখন নিছক নস্যি ছিল।
প্রীতি জিনতার অবতল গাল ছাপিয়ে, ব্লাজার উত্তল প্রেম যখন উথলিয়ে পড়ছিল!

কিংবা চান্দুর ইসপিশাল প্রেমগুলো, যাদের চেহারার কোন ছিলনা ছিরিছাঁদ।
তবুও সে খুশিতে বাজাতো বগল, ওর উৎকট প্রেম দেখে কত ভুলেছি বিষাদ!

বিবাহিত এক জনি কেনই বা জিমে যায়, এটা জানতে জি ও যেত জিমে।
জানিনা ডুঙ্গার রহস্য বস করেছিল কিনা উদ্ধার , কিংবা সে কি কারো পড়েছিল প্রেমে!

রাজিবের ছিল সর্বভুক প্রেম, জেসিকা অ্যালবা থেকে রেড হট মামা।
বয়স তার বাড়তোনা সহজে, আর বয়স যতই হতো ছোট হতো জামা!

চেহারা ছুরৎ যাই হোকনা কেন, মাথায় যেন থাকে কন্যার দীঘল কালো চুল।
এই নীতিতে চলতে গিয়ে, নিজের চুলের প্রেমেও পায়েল ছিল যে মশগুল!

বীরবলের ছিল বাপু অগুন্তি প্রেম, প্রেমের রাজ্যে সে ছিল দণ্ড বিহীন রাজা।
প্রেমে কিংবা বিরহে সে ছিল বড্ড ব্যাকুল, জন্ম দিত অজস্র কাব্য তরতাজা!

স্যাম এর প্রেম ছিল ছাত্রীঘটিত, প্রায়শই রশীদে নাকি আসতো প্রেয়সী।
আমি কিছুই করিনি তেমন, তবুও যা করেছি তা নাকি এর চেয়েও বেশি!

পাশার প্রেম ছিল পানি বিষয়ক, রিফাতের প্রেম মানে সদা মুঠোফোন।
মুন্না ভাইয়ের প্রেম ছিল ডাবল ডাবল, ওয়ালীর প্রেম মানে শুধুই দুজন!

তৌফিক ছিল রুপ বিশারদ, যদিও সুন্দরীদের রুপের ফাঁদে সে পড়ত বেশুমার।
হিমেলের প্রেম ছিল বড়ই ভয়ানক, চাকদে পাড্ডে বলে সে দিত কামজ হুঙ্কার!

পাপ্পুর ছিল বড়ই লাজুক প্রেম, আর ববির প্রেম ছিল সোহরাওয়ারদী হল।
জাঈদের ছিল জান্তব প্রেম, সুবিনের প্রেম মানেই হাজারটা মিসকল!

সালেকীন মানেই দুরন্ত প্রেম, তার প্রেমের প্রাবল্যে কাম্পাসে টেকা ছিল দায়।
নাসরুল্লাহ ছিল প্রথম সফল প্রেমিক, পিতা হওয়াই ছিল তার জীবনের অভিপ্রায়!

মানিক ভাই এর প্রেম ছিল প্লেন ওড়ানো, জনি ভাইয়ের প্রেম মানে অগুন্তি টিউশনি!
চমক ছিল এক প্রকান্ড পাইপ্রেমী, রশিদ হল ছিল এমন শত প্রেমিকের খনি!

এমন সব বিচিত্র প্রেমের প্রতাপশালী প্রেমিকেরা, আজ কেউই রশীদ হলে নেই।
তবুও যে যেখানেই থাকি, এখনো আমরা যত্রতত্র প্রেমে পড়ে প্রেমের প্রক্স্যি দেই!