Blog

প্রাণ

একদিন মরে যাব আমি, যদিও মরে যাওয়ার খুব বেশি তাড়া নেই আমার।
একদিন অকপটে নিঃশেষ হব, যেভাবে মিশে যায় তিসি মিশকালো জলে।
একদিন রক্ত মাংস আর অস্থি মজ্জা ছেড়ে, আমার অস্তিত্ব হবে অভুক্ত শূন্যতায়!
একদিন পুষ্টি আর তুষ্টির গুষ্টি কিলিয়ে, মিলিয়ে যাব কুৎসিত মৃত্যু মিলনে- বুদ্বুদ হয়ে!

বিকেলের নরম রোদ মরে গেলে, যেভাবে সন্ধ্যা নামে পৃথিবীর পয়মন্ত বুকে,
রাত্রির গাঢ় অন্ধকারে ব্যাঙ্গমা আর ব্যাঙ্গমীরা যখন গল্পের পসরা সাজায়,
হুতুম পেঁচা ডাকে, হুলো বেড়াল কাঁদে, উৎকণ্ঠা ভেসে বেড়ায় স্থবির বাতাসে,
তখনই মরে যাব – এমনটা নয়।

তবে যখনি মরে যাই, জন্মের চেয়ে তা হবে কম নাটুকে!
একদিন সাবলীলভাবে মরে যাব বলে, এস আজ একযোগে কাঁদিএমনটাও নয়।
বরং যতদিন বেঁচে আছি উজ্জয়িনীপুরে,
প্রাণের পারদে পুষ্ট হয়ে ঝলসে যাব পূর্ণ আলোয়…