Blog

পাহাড় তোমাকে

বহুদিন হল, পাহাড়ের ছাদে উঠে বলি না,
“অকপটে বিছিয়ে দাও জাদুর গালিচা!
তোমার সুডৌল চেহারা, প্রস্রবণী ধারা,
অরণ্যের অন্ধকার ভেদ করে জ্বলুক প্রভাতে।”
বহুদিন হল, পাহাড়ের কোল ঘেঁষে যে নদী,
কতদূর বয়ে গেছে কেউ তা জানে না,
তার কানে মুখ রেখে বলি না,
“ডুব দিস হে নদী, সাগরের নীলাভ চিবুকে!”
বহুদিন হল, পাহাড়কে সারারাত পাহারা দেয় যে অতন্দ্র হরিণী,
তার চোখে চোখ রেখে বলি না,
“ভয় নেই, আমিও তোমার মতন, তৃণভোজী মন নিয়ে বেঁচে আছি তটস্থ বনে।”
বহুদিন হল, ক্ষণিকের বৃষ্টিতে জন্ম নেয় যে ঝরা,
তার কোলে পা রেখে বলি না, “হে জল!
চলছে কেমন তোমার এ অবাক ভ্রমণ?
আমাকেও কি সঙ্গে নেবে তোমার অদৃশ্য শকটে?”

বহুদিন হল, পাহাড়কে আমি শোনাই না কবিতা,
পাহাড়ও আমায় শোনায় না গান,
বহুদিন হল, আমাদের মাঝে কোনো কথা নেই,
“আহারে পাহাড়! কেন তোমার এত চাপা অভিমান?”
বহুদিন মানে ঠিক কত দিন? ঠিক কতটা সময় আমি ভালোবাসাহীন?
“ভালো থেক পাহাড়,
যেমন ভালো আছে মুক্তো,
সাগরের গহীনে,
ঝিনুকের খোলের ভেতর…”