Blog

পাখির চোখে ভেগাস

পাহাড়ের উপরটা পাশবিক, ক্ষতবিক্ষত কোন অজানা সংঘর্ষে

বিষণ্ণ বালিয়াড়ি যেন থমকে দাঁড়ানো, রক্তাক্ত প্রান্তর ঈষৎ লালচে।

একটা নদী বয়ে চলেছে অনেক দূর, আপাতদৃষ্টিতে দিগন্তে গিয়ে ঠেকেছে।

হায়রে ভেগাস! তোর উজ্জলতা হার মানায় পাহাড়ের চমকানো চিবুক।

নিউ মেক্সিকো উশর তেপান্তরের মাঠ, তবু তোর দৈনতা সেতো আরও প্রকট।

লাল এই মরুর বুকে শুধু সুতোর মত নদী, একটাও গাছ নেই, একটাও পাখি

উড়ছেনা আকাশে! সব পাখি কি বসে আছে পাতানো স্লট মেশিনে?

কোথাও শীতল কিছু দেখিনা, যতদূর চোখ যায় বিখাউজ শুন্যতা!

পাহাড়ের হেলানো তলে কোন অতিমানব কি তার বুকের রক্ত ঢেলেছে?

অগ্নিদাহ দেখে দেখে আমি ক্লান্ত, মেঘের বুকে চোখ লুকাবো তার জোও নেই

হয়তো মেঘ হতে যতটুকু জল লাগে তার পুরোটাই ঢুকে বসে আছে বিয়ারের বোতলে।

এখন বুঝি আমার বন্ধু জয়ের বুকটা কেন প্রায়শই ব্যথায় চিনচিন করে?

আনন্দের আতিশয্যে ও হয়তো বিষণ্ণ হয়ে পরে থাকে বিম্বিসার কোনে!

সুন্দরীরা নেচে বেড়ায়, ডেভিডেরা দেখায় সেখানে হাতসাফাইয়ের খেলা!

বিরানভূমিটা আজ অনেকটা উর্বর, একেকটা ক্যাসিনো যেন একেকটা ট্র্যাক্টর।