Blog

ঝটিতি

হুট করে তুমি এসছিলে। তাইতো আমার উঠোন এখন- চাঁদের মতোই চকচকে,
পথ ভুলে; আবার যদি আসো!
ধুত্তরি! আর আসলে না। তবুও আমি গাছের মতোই- দাঁড়িয়ে করি প্রার্থনা,
যেথায় থাকো; খই এর মতো- খিলখিলিয়ে হাসো।

বৃষ্টি সেদিন পড়ছিল। মিষ্টি তোমার ঐ মুখে- জড়িয়ে ছিল মিষ্টতা,
মুগ্ধ হয়ে; সেই পানে- চেয়ে ছিলাম আমি!
ঠাণ্ডা রোদটা পড়ল না। তাইতো আমি ভিনদেশে- কুড়িয়ে বেড়াই বঞ্চনা,
সূর্যটাকে আস্ত গিলে; বোকার মতো ঘামি।

মন দিয়ে কাজ করছিলাম। আকাশ থেকে মাথার ‘পরে পড়লে তুমি- আচমকা,
তারপরে আর; কিচ্ছু মনে নেই!
স্মৃতিটা আর ফিরল না। আজও আমি কাজের ফাঁকে প্রলাপ বকি- বেমক্কা,
ভাবলে কিছু; হয় মনে- ভাবছি তোমাকেই।

খোলাই ছিল জানলাটা। উড়োচিঠির ককপিটে- লাফ দিয়ে কেউ বসলো না,
হয়তো প্রেম পতনশীল; ভয়েতে চোখ বুজি!
ঝটিতি! ঝট করে বাজ চমকালো, কে যেন ঘাড় মটকালো!
ঘাড় ঘুরিয়ে; ঘনিষ্ঠে- তোমাকে তাই খুঁজি।