Blog

ঈষিকা

গিয়েছে সোনার দিন।
আজও ফুটে রক্তগোলাপ, শূভ্র ইয়াসমিন।
আজ দেখিনা- চন্দ্রমালিকা, সূর্যমূখীর গাঁ।
এইতো সেদিকা-বলল ঈষিকা-ভালবাসিনা।
সব ভাওতা,ভান-ভনিতা,দীর্ঘ প্রেমটার টানলো ইতিটা।
ইশ ঈষিকা! নিষ্ঠুর প্রিয়া!
কোথায় পেলে গোলাপের কাঁটা, তীক্ষ্ম, সূঁচালো, ীন্?
মস্তিষ্কে করলো আঘাত, খেলাম হিস্টাসিন।
পেয়ারি প্রিয়ার প্যাহলি আঘাত সামলাতে গেল দিন।
আজও ফুটে থাকে রক্তগোলাপ, শূভ্র ইয়াসমিন।
হৃদয় বলতে আজ কিছু নেই, তবু সে হৃদয়ে লীন!
ফুটো হৃদয়ে দুটো কথা
ঈষিকা তুমি ঈস্ক্ কামিনা।
ঈষিকা তুমি অর্বাচীনা,প্রহেলিকা,মরিচিকা,মহামারী।
ঈশ্বর তোমার ইষ্ট করুক-ট্রাকের তলে পিষ্ট করুক
এই কামনাই করি!
ইচ্ছে করে মরার আগে আরো দশবার মরি!
তোমার মত ঈষিকা-মিষ্ট,লেজ বিশিষ্ট নারী
যে পেঁচামুখ তারই দাপট! যাই মরে বলিহারি।
তোমার মুখে পিলে হোক, চুলগুলো হোক গ্রিন।
হৃদয়ে তোমার ভাঙামূর্তি, নো টেনশন ফুর্তি
খাবো ডুরালোমিন, উড়াবো প্যাথেড্রিন।
এক,দুই,তিন।
এখন আমার অনেক প্রেমিকা-মনা,তিনা,তাজরিন।
ইশ্ ঈষিকা! এতোদিনে তুমি হতে মোর হৃদয়ের রানী,
তোমার জন্য এতগুলো মেয়ের আজ এত হয়রানী!
ঈষৎ হলেও ঈষিকা তুমি ভাল যে বেসেছ জানি।
আবার এসেছে সোনার দিন,
ঈষিকা গিয়েছে
ঈরিনা এসেছে
তাক ধিনা ধিন ধিন।